আপনার ভাগ্যের চাকা ঘুরাতে চান ? জেনে নিন এই সহজ টোটকা

শেয়ার করুন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে :

মানুষ সর্বদা একটি আরাম প্রিয়  জাতি। প্রত্যেক মানুষ তার জীবনে সবসময় চায় সুখী ও ধনবান হতে। এই সুখী এবং ধনবান হওয়ার আকাঙ্ক্ষা প্রত্যেক মানুষের মনে সর্বদা বিরাজ করেন। এই স্বপ্ন বা আকাঙ্ক্ষা কখনো মানুষ পূরণ করতে পারে আবার কখনও এই স্বপ্ন ,স্বপ্নই থেকে যায়। মানুষ তার জীবন দিয়ে চেষ্টা করে তার স্বপ্ন গুলোকে পূরণ করতে এবং তার ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে কিন্তু সবসময় মানুষ তা পেরে ওঠে না তবে এই ভাগ্যের চাকা ঘোরাতে কিছু ছোটখাটো নিয়ম পালন করা যেতে পারে। এই ছোটখাটো নিয়ম বা টোটকা পালনের মাধ্যমে আমরা কিছুটা উপকার পেতে পারি এবং নিজের ভাগ্যের চাকা কে কিছুটা ঘুরাতে পারি।  চলুন নিচে কিছু টোটকা দেখা যাক যা আমাদের ভাগ্যের চাকা ঘুরিয়ে দিতে পারে। 

দেখে নিন টোটকাগুলি কী কী—

• আমাদের দৈনন্দিন জীবনে অনেক দরকারি কাগজপত্র থাকে, আমাদের উচিত এই কাগজপত্র গুলো গুছিয়ে একটি আলমারির মধ্যে রাখা এবং এই আলমারিটি অবশ্যই কাঠের তৈরী আলমারি হতে হবে এবং এই আলমারীতে ঘরের পূর্বদিকে স্থাপন করতে হবে। 

• আমরা প্রতিদিন সকালে এবং রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে আমাদের দরজা ও জানালা বন্ধ করে থাকি। আমাদের অনেকের দরজা-জানালা অনেকদিন ব্যবহারের ফলে লাগানোর সময় কর্কশ আওয়াজ হতে থাকে  যা গৃহস্থের জন্য একটি অমঙ্গলের কারণ হতে পারে। দরজা-জানালা লাগানোর সময় এই কর্কশ আওয়াজে মা লক্ষ্মী রুষ্ট হন।  তাই আমাদের  উচিত আমাদের যদি কারো এরূপ দরজা-জানালা থাকে তাহলে তা সারিয়ে নেওয়া বা বদলে ফেলা।  এই সামান্য বিষয়টির জন্যই হয়তো আমাদের অনেক বড় ক্ষতি হতে পারে। 

• আমরা প্রতিদিনই জুতা ব্যবহার করি কিন্তু আমাদের মধ্যে এমন কিছু মানুষ আছে যারা জুতা ব্যবহার করার পরে তা ঘরের মধ্যে যেকোনো পাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে রেখে দেয়, যা আমাদের একটি অমঙ্গলের কারণ হতে পারে। ঘরে মধ্যে জুতাগুলো সবসময় পরিপাটি করে নির্দিষ্ট জায়গায় রাখতে হবে। জুতা রাখার জায়গা ঠিক করার সময় সব সময় পূর্বদিক এড়িয়ে চলুন পূর্ব দিকে জুতা রাখার ব্যবস্থা করা আমাদের উচিত নয়। 

• জুতার নির্দিষ্ট  জায়গায় রাখার পাশাপাশি সব সময় খেয়াল রাখতে হবে যেন জুতা একটির ওপর একটি  না থাকে। সব সময় জুতা খুলে রাখার সময় পরিপাটি করে রাখতে হবে।  জুতা একটির উপর একটি রাখলে তার সংসারের অশান্তি বৃদ্ধির কারণ হতে পারে। 

• প্রত্যেক মানুষের উচিত সকালে  ঘুম থেকে উঠে নিজের জামাকাপড় এবং বিছানার চাদর বদলে ফেলা।  গৃহে মানুষজন পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন ভাবে থাকে সেই গৃহে লক্ষী সর্বদা বিরাজ করে। 

• খাবার আমাদের জীবনের একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ। খাবার ছাড়া আমরা একটি দিনও বাঁচতে পারব না।  আর এই খাবার যেখানে তৈরি হয় রান্নাঘর সেটিও আমাদের পারিবারিক জীবনে একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। রান্নাঘর কখনও অপরিষ্কার রাখতে নেই এবং রান্নাঘরে কখনো রাতের বাসি জামা কাপড় পড়ে ঢুকতে নেই।  এতে অন্নপূর্ণা দেবীর নষ্ট হতে পারে  যা আমাদের খারাপ ভাগ্যের জন্য দায়ী হতে পারে।

• সকালে ঘুম থেকে ওঠার পর সর্বদা ঘরবাড়ি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন করে  সৃষ্টিকর্তার নিকট প্রার্থনা করতে হবে। প্রতিদিন সকাল ও সন্ধ্যায় একটি করে আগরবাতি জ্বালিয়ে নিতে পারেন কারণ এতে করে সংসারে অশান্তি কমে যায় এবং আপনার সারা দিনটি ভালো  কাটে। 

• প্রতিদিন অথবা আপনি পারলে সপ্তাহে একদিন আপনার সাধ্য মতো কোনো গরিব মানুষকে কিছু টাকা দান করতে পারেন। অথবা আপনার নিজ নিজ ধর্ম অনুযায়ী ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে কিছু টাকা দান করুন এতে করে আপনার সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টি লাভ হবে এবং ভাগ্যের চাকা ঘুরে যেতে পারে। 

আপনি যদি আপনার ভাগ্যের চাকা কে করাতে চান তাহলে অবশ্যই উপরের নিয়মগুলো মেনে চলুন আশা করি আপনার ভাগ্যের পরিবর্তন হবে।  উপরের নিয়ম গুলো মেনে চললে আপনার ঘরে সর্বদা লক্ষী বিরাজ করবে। 

আরো পড়ুন


শেয়ার করুন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে :

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top